মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সাব রেজিস্ট্রার

পরিচিতি

 

প্রতিটি উপজেলায় একটি করে সাব-রেজিস্ট্রী অফিসরয়েছে। তবে কোন কোন বড় উপজেলায় একাধিক সাব-রেজিস্ট্রী অফিসরয়েছে। অপরদিকে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় একাধিক থানা(পুলিশ স্টেশন)নিয়ে একেকটি সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের অধিক্ষেত্র গঠিত হয়েছে।

এই অফিস  আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন ও মহা পরিদর্শক, নিবন্ধন-এর অধীনে পরিচালিত।

দপ্তর প্রধানের পদবী:  সাব-রেজিস্ট্রার।

কার্যক্রম:  সাব-রেজিস্ট্রী অফিসএর উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমগুলি হলঃ স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্র্রকারের দলিল রেজিস্ট্রেশন, রেজিস্ট্রীকৃত দলিলের তথ্য সমূহ সংরক্ষন করা, আগ্রহী পক্ষকে রেজিস্ট্রীকৃত দলিলের তথ্য সমূহ ও অনুলিপি(সার্টিফাইড কপি) সরবরাহ করা, সরকারী রাজস্ব আদায় করা, সংশ্লিষ্ট ভূমি অফিসে LT নোটিশপ্রেরনকরা, ব্যাংক/আর্থিকপ্রতিষ্ঠানেরঅনুকুলেদায়মূক্তসনদ(NEC)ইস্যুকরা, দেওয়ানীআদালতেরমামলায়জমিরমালিকানাসংক্রান্তবিরোধেরনিস্পত্তিরপ্রয়োজনেরেকর্ড-পত্রউপস্থাপনকরাইত্যাদি।

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

নাগরিক ও সরকারী পর্যায়ে সমস্যা সমূহ এবং সার্ভিস আইডেন্টিফিকেশন

ক্র:নং

         সেবা

সেবা প্রদান/প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অসুবিধা সমুহ

  নাগরিক পর্যায়ে

  সরকারী পর্যায়ে

০১

দলিল সংক্রান্ত পরামর্শ

জনসাধারনকে দলিল রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে পরামর্শ ও দলিল প্রস্তুত করার জন্য একজন দলিল লেখক বা উকিলের শরনাপন্ন হতে হয়। অনেক ক্ষেত্রেই দক্ষ দলিল লিখকের অভাব রয়েছে্। দলিল প্রস্তুত করার জন্য জনগনকে যথেষ্ট সময় ও অর্থ ব্যয় করতে হয়।

যেকোন ব্যক্তি ইচ্ছা করলে সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট থেকে দলিলের রেজিস্টেশন সংক্রান্ত বিষয়ে বিনাখরচে পরামর্শ পেতে পারে। সীমিত জনবলের কারনে প্রতিটি দলিল রেজিস্ট্রে্শনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট সকলকে পরামর্শ প্রদান করা অনেক ক্ষেত্রে সম্ভব হয়না।

 

প্রতিটি অফিসে নির্দিষ্ট পরামর্শ ডেস্ক না থাকায় জনগন পরামর্শ প্রাপ্তির বিষয়ে অবগত নয়।

 

০২

দলিল রেজিস্ট্রেশন

দলিল রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য প্রমান সংগ্রহ করা জনসাধারনের জন্য সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়সাধ্য বিষয়্। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই জমি হস্তান্তর আইন ও বিধি বিধান এবং জমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত খরচ সম্পর্কে জনগনের স্পষ্ট ধারনা থাকেনা্। দলিলের ফি প্রদান বাবদ ব্যাংকে বিভিন্ন দফায় টাকা জমা প্রদান করে পে-অর্ডার সংগ্রহ করতে যথেষ্ট সময় ও বাড়তি অর্থ ব্যয় করতে হয়।   

জমির মালিকানা সংক্রান্ত স্বয়ংসম্পূর্ন কোন ডাটাবেইজ না থাকায় এবং রেজিস্ট্রী অফিসে জমির মলিকানা সংক্রান্ত আর,ও,আর, না থাকায় উপস্থাপিত তথ্য সমূহ যাচাই করা সম্ভব হয়না।

 

ভিন্ন ভিন্ন দফায় ও  ভিন্ন ভিন্ন পে-অর্ডারে টাকা গ্রহন করা অসুবিধা জনক।

০৩

মূল দলিল সংশ্লিষ্ট পক্ষকে ফেরৎ প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক দলিলের দাখিল গ্রহনের পর পর্যায়ক্রমে বালাম বইতে মূল দলিলের একটি অবিকল প্রতিলিপি প্রস্তুত করা হয় এবং বিধি অনুযায়ী সুচী প্রস্তুত করার পর পক্ষকে মূল দলিল ফেরত প্রদান করা হয়্। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে অফিস ভেদে ১৫দিন থেকে ২/৩ বছর সময় লেগে যায়।ফলে জনগনকে মূল দলিল ফেরৎ পেতে এই দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে দলিল নকলের কাজ ও সূচীর কাজ করতে হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই পর্যাপ্ত জনবল ও বালাম বই-এর নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ না থাকায় সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের পরিস্থিতি উন্নয়নে তেমন কিছুই করার থাকেনা। এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ন রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হলে এই দুর্ভোগ লাঘব করা সম্ভব।

০৪

তল্লাশ ও পরিদর্শন

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে তল্লাশ কারকের মাধ্যমে বা স্বয়ং সূচী বই তল্লাশ প্রদান পূর্বক কোন সম্পত্তি হস্তান্তরের বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য সংগ্রহ করতে পারে বা বালাম বই পরিদর্শন করতে পারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমুহ ডাটা বেইজ নাথাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

০৫

নকল প্রদান

নির্ধারিতফিসজমাদিয়েআগ্রহীপক্ষরেজিস্ট্রীকৃতযেকোনদলিলওসূচীরনকলতুলতেপারে।

বালাম ও সূচীবই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে নকল প্রস্তুত করে সরবরাহ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয়।

০৬

দায়মুক্ত(NEC) সনদপ্রদান

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে কোনসম্পত্তিরদায়মুক্ত(NEC) সনদসংগ্রহকরতেপারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমূহ ডাটা বেইজ না থাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

 

 

 

 

 

 


16.4 নাগরিক সেবার তথ্য সারনী

ক্রমিক

নং:

বিভাগ/দপ্তর

সেবা সমূহ/ সেবার নাম

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা/ কর্মচারী

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের প্রয়োজনীয় সময়

সেবা প্রদানের ফি

Frequency

সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধি বিধান

সেবাপ্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান

০১

সাব-রেজিস্ট্রী

অফিস

দলিল রেজিস্ট্রী সংক্রান্ত পরামর্শ

সাব-রেজিস্ট্রার

যে কোন ইচ্ছুক ব্যক্তি বা পক্ষ সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট থেকে দলিল রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রযোজ্য স্ট্যাম্প মাশুল, রেজিস্ট্রেশন ফিস, আয়কর, ভ্যাট, স্থানীয় সরকার কর, ইত্যাদি সম্পর্কে এবং দলিল রেজিস্ট্রেশনের সময় উপস্থাপন যোগ্য তথ্য প্রমান/ পরচা, নামজারী ইত্যাদি সম্পর্কে পরামর্শ গ্রহন করতে পারেন ।

তাৎক্ষনিক

(০১ দিন)

কোন ফিস প্রযোজ্য নয়

অফিস ভেদে দৈনিক ২/৪ জন থেকে ৪০/৫০ জন

রেজিস্ট্রেশন আইন,

সম্পত্তি হস্তান্তর আইন,

স্ট্যাম্প আইন,

আয়কর আইন,

ইত্যাদি

জেলা রেজিস্ট্রার

০২

সাব-রেজিস্ট্রী

অফিস

দলিল রেজিস্ট্রেশন

সাব-রেজিস্ট্রার,

সহকারী,

মোহরার,

টি,সি, মোহরার,

নকল নবীশ,

পিয়ন ।

 

দলিল রেজিস্ট্র্রেশনের জন্য ইচ্ছুক পক্ষগন দলিল লেখক বা আইনজীবীর দ্বারা দলিলের মুসাবিদা করিয়ে থাকেন এবং দলিলটি স্ট্যাম্প পেপারে লিখিয়ে বা কম্পিউটারে টাইপ করে রেজিস্ট্রির জন্য সংশ্লিষ্ট রেজিস্ট্রী অফিসে সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট দাখিল দেন। সাব-রেজিস্ট্রার প্রয়োজনীয় তথ্য প্রমান যাচাই শেষে সন্ত্তষ্ট হলে প্রযোজ্য স্ট্যাম্প মাশুল, রেজিস্ট্র্রেশন ফিস, আয়কর, ভ্যাট, স্থানীয় সরকার কর, ইত্যাদি আদায় সাপেক্ষে দলিলটি রেজিস্ট্রির জন্য গ্রহন করেন। দলিল রেজিস্ট্রির সময় দলিল দাতা/সম্পাদনকারীকে অফিসের রেজিস্টারে স্বাক্ষর ও টিপসই দিতে হয়। এরপর দলিল দাতাকে অফিস থেকে একটি রশিদ দেয়া হয়, যা ফেরৎ দেয়া সাপেক্ষে পরবর্তিতে দলিলটি বালাম বইয়ে নকল করা ও সূচী ভূক্ত করার পর মূল দলিল পক্ষকে ফেরৎ দেয়া হয় ।

০১ দিন

বিভিন্ন প্রকারের দলিলের রেজিস্ট্রেশন ফিস ভিন্ন।নিম্নে প্রচলিত কয়েক প্রকার দলিলের রেজিস্ট্রেশন ফিস দেয়া হলো:

 

() সাবকবলাদলিল(মূল্যেরউপর) :

 

স্ট্যাম্প শুল্ক- ০৩%

রেজিস্ট্রেশন ফিস- ০২%

স্থানীয় সরকার কর- ০২%

তবে, খুলনা সিটি কর্পোরেশন ও ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকায়- ০১%

 

উৎসে আয়কর(53H)-২%         (সিটি কর্পোরেশন ও পৌর এলাকায়)

মফস্বল এলাকায় কৃষি জমিতে উৎসে আয় কর প্রযোজ্য নয়,

অকৃষি জমির ক্ষেত্রে- ০১%

 

বানিজ্যিক ভাবে নির্মিত ফ্ল্যাট, বিল্ডিং ও প্লট বিক্রির ক্ষেত্রে-

ভ্যাট(মূল্যের উপরে)- ০১.৫০%

 

উৎসে আয়কর(53FF)-

প্লটের ক্ষেত্রে-(মূল্যের উপর)-২%

 

এবং ফ্ল্যাটের ক্ষেত্রে ঢাকা মহানগরের গুলশান, বনানী, বারিধারা, ডি ও এইচ এস, ধানমন্ডি, লালমাটিয়া, উত্তরা ও বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ক্যান্টনমেন্ট এলাকা, মতিঝিল বা/এ, দিলকুশা বা/এ, কাওরান বাজার বা/এ এবং চট্রগ্রাম জেলার খুলশী আ/এ, পাঁচলাইশআ/এ, ও আগ্রাবাদ এলাকায়(53FF)-

প্রতি বর্গমিটারে- ২০০০/=

অন্যান্য এলাকার ক্ষেত্রে- ৮০০/=

 

হলফ নামার স্ট্যাম্প শুল্ক- ৫০/=

 E ফিস- ১০০/=

N ফিস-প্রতি ৩০০ শব্দ বা তার অংশের জন্য- ২৫/= হারে ।

 

() দানপত্র/ হেবাবিলএওয়াজদলিল(মূল্যেরউপর) :    

 

স্ট্যাম্প শুল্ক- ০৩%

রেজিস্ট্রেশন ফিস- ০২%

স্থানীয় সরকার কর- ০২%

তবে, খুলনা সিটি কর্পোরেশন ওক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকায়- ০১%

হলফ নামার স্ট্যাম্প শুল্ক- ৫০/=

E ফিস- ১০০/=

N ফিস-প্রতি ৩০০ শব্দ বা তারঅংশের জন্য- ২৫/= হারে ।

 

() হেবারঘোষনাপত্রদলিল  ( মূল্যনির্বিশেষে) :

 

রেজিস্ট্রেশন ফিস(A ফিস)- ১০০/=            স্ট্যাম্প শুল্ক- ৫০/=

হলফ নামার স্ট্যাম্প শুল্ক- ৫০/=

 E ফিস- ১০০/=

 N ফিস-প্রতি ৩০০ শব্দ বা তারঅংশের জন্য- ২৫/= হারে ।

 

() পাওয়ারঅবএটর্নীদলিল:

স্ট্যাম্প শুল্ক- ২০০/=

হলফ নামার স্ট্যাম্প শুল্ক- ৫০/=

 E ফিস- ১০০/=

 N ফিস-প্রতি ৩০০ শব্দ বা তারঅংশের জন্য- ২৫/= হারে ।

 

() বায়না/চুক্তিপত্রদলিল:

স্ট্যাম্প শুল্ক- ১৫০/=

হলফ নামার স্ট্যাম্প শুল্ক- ৫০/=

 E ফিস- ১০০/=

 N ফিস-প্রতি ৩০০ শব্দ বা তারঅংশের জন্য- ২৫/= হারে ।

রেজিস্ট্রেশন ফিস(মূল্যের উপর)-

জমির মূল্য,

৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হলে-৫০০/=

৫ লক্ষ টাকার উর্ধ্ব হতে ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হলে- ১০০০/=

৫০ লক্ষ টাকার উর্ধ্বে যে কোন মূল্যের ক্ষেত্রে- ২০০০/= ।

অফিস ভেদে প্র্রতিদিন গড়ে ৫-১০ টি থেকে ৮০-৯০ টি দলিল রেজিস্ট্রী হয়।

রেজিস্ট্রেশন আইন,

সম্পত্তি হস্তান্তর আইন,

স্ট্যাম্প আইন,

আয়কর আইন,

প্রজাস্বত্ত্ব আইন,

চুক্তি আইন,

স্বাক্ষ্য আইন,

উত্তরাধিকারআইন, ইত্যাদি।

জেলা রেজিস্ট্রারের কাছে আপিল দায়ের। সেখানে ব্যর্থ হলে দেওয়ানী আদালতে মামলা দায়ের করা যাবে ।

0৩

সাব-রেজিস্ট্রী

অফিস

রেজিস্ট্রেশন শেষে মূল দলিল পক্ষকে ফেরৎ প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার,

সহকারী,

মোহরার,

নকল নবীশ,

পিয়ন

রেজিস্ট্রেশনের জন্য দলিল গ্রহনের পর তাতে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কিত পৃষ্ঠাংকন করে বালাম বইয়ে নকল নবীশ দিয়ে দলিলের একটি অবিকল অনুলিপি প্রস্তুত করা হয়। এর পর সহকারী বা মোহরার গন দলিলের পক্ষ এবং হস্তান্তরিত সম্পত্তির মৌজা, দাগ নম্বর, জমির পরিমান, ইত্যাদির বিবরন সম্পর্কিত ভিন্ন ভিন্ন সূচী(ইনডেক্স) প্রস্তুতকরে থাকে।দলিলের নকল ও সূচীকরন শেষ হলে অফিসের নোটিশ বোর্ডে মূল দলিল ফেরৎ গ্রহন করার জন্য পক্ষকে নোটিশ দেয়া হয়।পক্ষগন মূল রশিদ অফিসে ফেরৎ প্রদান করে মূল দলিল গ্রহন করে থাকেন ।

অফিস ভেদে ১৫ দিন থেকে ১/২ বৎসর

দলিলের কোন ফিস বকেয়া থেকে থাকলে রশিদের মাধ্যমে আদায় করা হয় ।

অফিস ভেদে প্রতিদিন গড়ে ৫/১০ টি থেকে ৯০/১০০ টি দলিল

রেজিস্ট্রেশন আইন ও বিধি মালা

জেলা রেজিস্ট্রার

০৪

সাব-রেজিস্ট্রী

অফিস

তল্লাশ ও পরিদর্শন

সাব-রেজিস্ট্রার,

সহকারী,

মোহরার

যে কোন ইচ্ছুক ব্যক্তি বা পক্ষ সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট আবেদন করে এবং নির্ধারিত ফিস প্রদান করে যে কোন রেজিস্ট্রীকৃত দলিল সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের জন্য সূচী বই তল্লাশ করতে পারেন এবং বালাম বই পরিদর্শন করতে পারেন

তাৎক্ষনিক

(০১ দিন)

তল্লাশফিস:

 

প্রতি বৎসরের জন্য- ১০/=,

সর্বোচ্চ- ৮০/=

পরিদর্শন ফিস:

প্রতিটি দলিলের জন্য- ৫/=

অফিস ভেদে দৈনিক ৫/১০ টিথেকে ১০০/১৫০ টি

রেজিস্ট্রেশন আইন ও বিধি মালা

 

জেলা রেজিস্ট্রার

০৫

সাব-রেজিস্ট্রী

অফিস

নকল(সার্টিফাইড কপি) প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার,

সহকারী,

মোহরার,

নকল নবীশ

যে কোন ইচ্ছুক ব্যক্তি বা পক্ষ সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট আবেদন করে এবং নির্ধারিত ফিস প্রদান করে যে কোন দলিলের বা রেজিস্ট্রী সম্পন্নকৃত দলিলের ক্ষেত্রে রেকর্ড রুম থেকে বালাম বই বা সূচীর নকল(সার্টিফাইড কপি) গ্রহন করতে পারেন।

জরুরী ফিস প্রদান করলে ০১-০৩ দিন, সাধারন ফিসের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৭দিন

স্ট্যাম্প শুল্ক-২০/=,

বাংলা প্রতি ১০০ শব্দ বা তার অংশের জন্য-০৩/=,

ইংরেজী প্রতি ১০০ শব্দ বা তার অংশের জন্য- ৫/=

জরুরী নকল প্রাপ্তির জন্য অতিরিক্ত: বালামের প্রথম ০৪ পৃষ্ঠার জন্য- ২০/= টাকা, পরবর্তী প্রতি পৃষ্ঠা বা অংশের জন্য- ৫/=

নকলের আবেদন পত্রে কোর্ট ফি- 2০/=

অফিস ভেদে প্র্রতিদিন গড়ে ৫/১০ টি থেকে ১০০/১৫০ টি

রেজিস্ট্রেশন আইন ও বিধি মালা

 

জেলা রেজিস্ট্রার

০৬

সাব-রেজিস্ট্রী

অফিস

দায়মুক্ত সনদ(NEC) প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার,

সহকারী,

মোহরার,

অথবা

তল্লাশ কারক/ দলিল লেখক

যে কোন ইচ্ছুক ব্যক্তি বা পক্ষ সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট আবেদন করে এবং নির্ধারিত ফিস প্রদান করে সূচী বই তল্লাশের মাধ্যমে রেকর্ড রুম থেকে যে কোন সম্পত্তির দায়মুক্ত সনদ(NEC) পেতে পারেন

০১ দিন থেকে ০৭ দিন

কোনব্যক্তিবামৌজারনামতল্লাশেরজন্য:

 

প্রতি বৎসর- ১০/=

সর্বোচ্চ ফিস- ৮০/=

অফিস ভেদে ১/২ টি থেকে ২০/৩০ টি

রেজিস্ট্রেশন আইন ও বিধি মালা

 

জেলা রেজিস্ট্রার

                  
 

 

সাব রেজিস্ট্রার এর কার্যালয় কর্তৃক প্রদেয় সেবার বিবরণ

ক্রমিক নং

সেবার ধরণ

সেবা প্রাপ্তির সময়সীমা

সেবা দানকারী কর্মকর্তার পদবী ও ঠিকানা

উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ

০১

দলিল রেজিষ্ট্রি করণ বা মোক্তার নামা তসদিক করণ।

১ দিন

সাব রেজিস্ট্রার

আনোয়ারা,চট্টগ্রাম।

জেলা রেজিস্ট্রার

চট্টগ্রাম।

০২

রেজিষ্ট্রিকরণ অমেত্ম মূল দলিল ফেরত গ্রহণ

অফিস ভেদে ১মাস হইতে ১ বৎসর

সাব রেজিস্ট্রার

আনোয়ারা,চট্টগ্রাম।

জেলা রেজিস্ট্রার

চট্টগ্রাম।

০৩

তসদিককৃত মোক্তার নামা ফেরৎ গ্রহণ।

১দিন

সাব রেজিস্ট্রার

আনোয়ারা,চট্টগ্রাম।

জেলা রেজিস্ট্রার

চট্টগ্রাম।

০৪

দলিলের নকল সংগ্রহ

১হইতে ৭দিন

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

চট্টগ্রাম।

০৫

সম্পত্তি হসত্মামত্মর সংক্রামত্ম তথ্য সংগ্রহ

১ হইতে ৭দিন

সাব রেজিস্ট্রার

দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

জেলা রেজিস্ট্রার

চট্টগ্রাম।

০৬

দলিল মুসাবিদাকরণ/প্রস্ত্তত করণ/লিখন বিষয়ক সহায়তা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

০৭

দলিল মুসাবিদাকরণ/প্রস্ত্তত করণ/লিখন বিষয়ক রেজিষ্ট্রিকরণের সহায়তা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

০৮

দলিলের নকল বা তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে সহায়তা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

০৯

মূল দলিল সংগ্রহে সহায়থা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

১০

যে কোন আবেদন, দরখাসত্ম ইত্যাদি লিখনে সহায়থা গ্রহণ

১দিন

সনদ প্রাপ্ত দলিল লিখক

সাব রেজিস্ট্রার

 

ক্র:নং

         সেবা

সেবা প্রদান/প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অসুবিধা সমুহ

  নাগরিক পর্যায়ে

  সরকারী পর্যায়ে

০১

দলিল সংক্রান্ত পরামর্শ

জনসাধারনকে দলিল রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে পরামর্শ ও দলিল প্রস্তুত করার জন্য একজন দলিল লেখক বা উকিলের শরনাপন্ন হতে হয়। অনেক ক্ষেত্রেই দক্ষ দলিল লিখকের অভাব রয়েছে্। দলিল প্রস্তুত করার জন্য জনগনকে যথেষ্ট সময় ও অর্থ ব্যয় করতে হয়।

যেকোন ব্যক্তি ইচ্ছা করলে সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের নিকট থেকে দলিলের রেজিস্টেশন সংক্রান্ত বিষয়ে বিনাখরচে পরামর্শ পেতে পারে। সীমিত জনবলের কারনে প্রতিটি দলিল রেজিস্ট্রে্শনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট সকলকে পরামর্শ প্রদান করা অনেক ক্ষেত্রে সম্ভব হয়না।

 

প্রতিটি অফিসে নির্দিষ্ট পরামর্শ ডেস্ক না থাকায় জনগন পরামর্শ প্রাপ্তির বিষয়ে অবগত নয়।

 

০২

দলিল রেজিস্ট্রেশন

দলিল রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য প্রমান সংগ্রহ করা জনসাধারনের জন্য সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়সাধ্য বিষয়্। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই জমি হস্তান্তর আইন ও বিধি বিধান এবং জমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত খরচ সম্পর্কে জনগনের স্পষ্ট ধারনা থাকেনা্। দলিলের ফি প্রদান বাবদ ব্যাংকে বিভিন্ন দফায় টাকা জমা প্রদান করে পে-অর্ডার সংগ্রহ করতে যথেষ্ট সময় ও বাড়তি অর্থ ব্যয় করতে হয়।   

জমির মালিকানা সংক্রান্ত স্বয়ংসম্পূর্ন কোন ডাটাবেইজ না থাকায় এবং রেজিস্ট্রী অফিসে জমির মলিকানা সংক্রান্ত আর,ও,আর, না থাকায় উপস্থাপিত তথ্য সমূহ যাচাই করা সম্ভব হয়না।

 

ভিন্ন ভিন্ন দফায় ও  ভিন্ন ভিন্ন পে-অর্ডারে টাকা গ্রহন করা অসুবিধা জনক।

০৩

মূল দলিল সংশ্লিষ্ট পক্ষকে ফেরৎ প্রদান

সাব-রেজিস্ট্রার কর্তৃক দলিলের দাখিল গ্রহনের পর পর্যায়ক্রমে বালাম বইতে মূল দলিলের একটি অবিকল প্রতিলিপি প্রস্তুত করা হয় এবং বিধি অনুযায়ী সুচী প্রস্তুত করার পর পক্ষকে মূল দলিল ফেরত প্রদান করা হয়্। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে অফিস ভেদে ১৫দিন থেকে ২/৩ বছর সময় লেগে যায়।ফলে জনগনকে মূল দলিল ফেরৎ পেতে এই দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে দলিল নকলের কাজ ও সূচীর কাজ করতে হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই পর্যাপ্ত জনবল ও বালাম বই-এর নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ না থাকায় সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিস্ট্রারের পরিস্থিতি উন্নয়নে তেমন কিছুই করার থাকেনা। এ ক্ষেত্রে সম্পূর্ন রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হলে এই দুর্ভোগ লাঘব করা সম্ভব।

০৪

তল্লাশ ও পরিদর্শন

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে তল্লাশ কারকের মাধ্যমে বা স্বয়ং সূচী বই তল্লাশ প্রদান পূর্বক কোন সম্পত্তি হস্তান্তরের বিষয়ে সর্বশেষ তথ্য সংগ্রহ করতে পারে বা বালাম বই পরিদর্শন করতে পারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমুহ ডাটা বেইজ নাথাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

০৫

নকল প্রদান

নির্ধারিতফিসজমাদিয়েআগ্রহীপক্ষরেজিস্ট্রীকৃতযেকোনদলিলওসূচীরনকলতুলতেপারে।

বালাম ও সূচীবই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে নকল প্রস্তুত করে সরবরাহ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয়।

০৬

দায়মুক্ত(NEC) সনদপ্রদান

যে কোন ব্যক্তি নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে রেজিস্ট্রী অফিস বা সদর রেকর্ডরুম থেকে কোনসম্পত্তিরদায়মুক্ত(NEC) সনদসংগ্রহকরতেপারে।

তথ্যসমূহ সূচী বই থেকে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে তল্লাশ করা হয় বলে অনেক বেশী সময় ব্যয় হয় এবং অনেক ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়না। তথ্য সমূহ ডাটা বেইজ না থাকায় এই অবস্থার দ্রুত উন্নতি সম্ভব নয়।

ছবি নাম মোবাইল
মহসীন আলম ০১৭১১-৮৯১০৭১

ছবি নাম মোবাইল
মহসীন আলম ০১৭১১-৮৯১০৭১

ছবি নাম মোবাইল
মাহাবুবুল আলম

 

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

সাব রেজিস্ট্রার এর কার্যালয়

আনোয়ারা, চট্টগ্রাম।

বর্তমানে চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা উপজেলার উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার অফেসের অধীনে বর্তমানে কোন প্রকল্প নেই।বর্তমানে অত্র অফিসে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

 

মহসীন আলম

ইমেইল ঠিকানা

Designation

সবা-রেজিস্ট্রার

মোবাইল নাম্বার

০১৭১১-৮৯১০৭১
আনোয়ারা সাব রেজি: অফিস,

আনোয়ারা থানার পশ্চিম পার্শ্বে

আনোয়ারা, চট্টগ্রাম।